সকল সিমের ব্যালেন্স ট্রান্সফারের নিয়ম। একনজরে জেনে নিন। সবার কাজে লাগবে।

Samiul Bari

Author:

Total Comments: 985

Total: 126 Posts

Home » Technology » সকল সিমের ব্যালেন্স ট্রান্সফারের নিয়ম। একনজরে জেনে নিন। সবার কাজে লাগবে।

আসসালামু আলাইকুম। আশা করি সবাই ভালো আছেন। আমি আজ আপনাদের জন্য সকল সিমের ব্যালেন্স ট্রান্সফারের নিয়ম নিয়ে পোষ্ট করছি।

বিঃদ্রঃ আমরা যারা কষ্ট করে পোষ্ট লিখি । আপনারা যখন কোন কমেন্ট করেন না। তখন আমাদের খারাপ লাগে। একটি পোষ্ট লিখতে হলে আমাদের অনেক খাটনি করতে হয়। পোষ্ট লেখা এত সহজ নয়। যাই হোক আর কথা বলব না।
চলুন শুরু করি।
জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফারের নতুন নিয়ম:
* এখন থেকে নতুন গ্রাহকদের ব্যালেন্স ট্রান্সফারের পুরনো পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবে না। নতুন SIM-এ ব্যালেন্স ট্রান্সফারের বিল্ট-ইন অপশন থাকছে।
* বর্তমান গ্রাহকদের আগের নিয়মেই ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে হবে। SIM-এ বিল্ট-ইন অপশন পাবার জন্য আপনাকে নতুন SIM নিতে হবে।

ব্যালেন্স ট্রান্সফারের নতুন নিয়ম

হ্যান্ডসেটের ট্রান্সফার ব্যালেন্স অপশনে যান, প্রাপকের মোবাইল নম্বর দিন, মোবাইল নম্বরটি কনফার্ম করুন, কত টাকা পাঠাতে চান তা টাইপ করুন, টাকার পরিমাণ কনফার্ম করুন, PIN নম্বরটি দিন।

নতুন SIM-এ PIN নম্বর পরিবর্তনের নিয়ম

পুরনো PIN নম্বর দিন, নতুন PIN নম্বর দিন, নতুন PIN রেজিস্ট্রেশন কনফার্ম করুন।

রেজিস্টার করার জন্য

হ্যান্ডসেটের মেসেজ অপশনে গিয়ে টাইপ করুন REGI
পাঠিয়ে দিন1000 নম্বরে
ফিরতি এসএমএস-এ আপনাকে ব্যালেন্স ট্রান্সফারের জন্য নতুন PIN কোড নম্বর জানিয়ে দেয়া হবে।

ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার জন্য

হ্যান্ডসেটের মেসেজ অপশনে গিয়ে টাইপ করুন BTR **** (PIN) 0171***(মোবাইল নম্বর) 100 (টাকার পরিমাণ) এক্ষেত্রে কখনো সংখ্যার পর কোন ডট (বিন্দু) বা Tk. বা 00 দেবেন না।
মেসেজটি পাঠিয়ে দিন 1000 নম্বরে।

ফিরতি এসএমএস আপনাকে জানিয়ে দেবে যে আপনার নির্দেশিত নম্বরে নির্দেশিত পরিমাণ টাকা পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। টাকা পাওয়ার পর প্রাপকের মোট কত ব্যালেন্স হলো, তাও আপনাকে জানিয়ে দেয়া হবে।

প্রাপকের কাছেও একটি মেসেজ এসে জানিয়ে দেবে যে তার অ্যাকাউন্টে টাকা জমা হয়েছে এবং তার অ্যাকাউন্ট ব্যালেন্স কত টাকা।

PIN নম্বর পরিবর্তন করার জন্য

হ্যান্ডসেটের মেসেজ অপশনে গিয়ে টাইপ করুন CPIN পুরনো PIN নম্বর নতুন PIN নম্বর আবারো নতুন PIN নম্বর।

যেমন: CPIN 1234 4321 4321
পাঠিয়ে দিন 1000 নম্বরে।

বাংলালিংক ব্যালেন্স ট্রান্সফারের নিয়ম:
সকল বাংলালিংক প্রিপেইড কল অ্যান্ড কন্ট্রোল গ্রাহক ব্যালন্স ট্রান্সফার করতে পারবে অন্য বাংলালিংক প্রিপেইড কল অ্যান্ড কন্ট্রোল গ্রাহকদের কাছে

নতুন সংযোগ চালুর এক মাস পর গ্রাহকগণ ব্যালেন্স ট্রান্সফার সেবাটি ব্যবহার করতে সক্ষম হবেন

এই ব্যালেন্স ট্রান্সফার সার্ভিস উপভোগ করতে হলে আগে রেজিস্টার করতে হবে।

রেজিস্টার করতে হলে *1000# কোড ডায়াল করতে হবে এবং নিচে বর্ণিত নির্দেশনা অনুসরণ করতে হবে.

রেজিস্ট্রেশন এসএমএস করার পর ফিরতি এসএমএস -এ একটি PIN নাম্বার পাবেন

এই পিন নাম্বার ব্যবহার করেই সকল ব্যালেন্স ট্রান্সফার করা যাবে

প্রিপেইড ussd মেনুতেও এই ব্যালেন্স ট্রান্সফার সার্ভিস পাওয়া যাবে

সার্ভিসের জন্য প্রয়োজনীয় ধাপসমূহ নিচে বর্ণিত আছে

সার্ভিস অ্যাক্টিভেশন পদ্ধতি

রেজিস্টার করতে হলেঃ

ডায়াল করুন *1000#⇒’Balance Transfer’⇒ ‘Set PIN’⇒ ‘New Pin’⇒’Confirm New PIN’⇒(পপ-আপ মেসেজ আসবেঃ) “You have successfully set your new PIN”

ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে হলেঃ

এসএমএস–এর মাধ্যমে

মেসেজ অপশনে যান এবং টাইপ করুন‘BTRপরিমাণপ্রাপকের মোবাইল নাম্বারPIN’

মেসেজটি 1000 নাম্বারে পাঠান

আপনি একটি কনফারমেশন মেসেজ পাবেন

মেনুর মাধ্যমে

ডায়াল করুন *1000#⇒Balance Transfer⇒Amount⇒প্রাপকের নাম্বারটি লিখুন⇒ আপনার PIN লিখুন

Pin পরিবর্তন করতে হলে:

এসএমএস–এর মাধ্যমে

মেসেজ অপশনে যান এবং টাইপ করুন ‘CPINOLDPINNEWPIN’. উদাহরণ: ‘CPIN 1234 4321’

তারপর মেসেজটি 1000 নাম্বারে পাঠিয়ে দিন

USSD মেনুর মাধ্যমে

ডায়াল করুন *1000#⇒Change Pin⇒বর্তমান PIN লিখুন ⇒নতুন PIN লিখুন ⇒PIN নিশ্চিত করুন

শর্তাবলীঃ

এক ট্রান্সফারে সর্বনিম্ন ৳১০ এবং সর্বোচ্চ ৳১০০ পাঠানো যাবে ( কোন ভগ্নাংশ ব্যতীত)

এক দিনে সর্বোচ্চ ৳৫০০ আর এক মাসে সর্বোচ্চ ৳১০০০ ট্রান্সফার করা যাবে

পরিমাণটি পূর্ণসংখ্যা হতে হবে আর নাম্বার ব্যতীত কোন রকম অক্ষর লিখা যাবে না, (যেমন ৳৫০)কোন রকম ভগ্নাংশ থাকা যাবে না।

USSD কোড *1000# ডায়াল করে সার্ভিসটির জন্য রেজিস্টার করতে হবে

এসএমএস বা USSD (*1000#) – দুই পদ্ধতিতেই ব্যালেন্স ট্রান্সফার করা যাবে

প্রতিদিন রাত ১২টার পর দৈনিক সীমা রিসেট করা হবে।

প্রমোশনাল চার্জঃ

৳২.৪৪ (ভ্যাট, এসডি ও এসসি সহ), প্রেরকের ব্যালেন্স থেকে

৳২.৪৪ (ভ্যাট, এসডি ও এসসি সহ), প্রাপকের ব্যালেন্স থেকে

এয়ারটেল ব্যালেন্স ট্রান্সফারের নিয়ম:

কিভাবে রেজিস্টার করবেন:

‘Reg’ লিখে ১০০০ নম্বরে এসএমএস করুন

ফিরতি এসএমএস-এ আপনাকে একটি ৪ডিজিটের পিন নম্বর দেয়া হবে, সংরক্ষণ করে রাখুন

কিভাবে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করবেন:

আপনার মোবাইল হ্যান্ডসেটের মেসেজ অপশন থেকে নতুন মেসেজ লেখার অপশনে যান

ব্যালেন্স পাঠাতে হলে যথাক্রমে ‘Btr’, খালি জায়গা, পিন নম্বর, খালি জায়গা, সেবা গ্রহীতার প্রিপেইড নম্বর এবং সবশেষে পাঠানো টাকার পরিমাণ লিখুন (উদাহরণBtr_XXXX_016XXXXXXX )

এসএমএসটি পাঠিয়ে দিন ১০০০ নম্বরে

ফিরতি এসএমএস এ ব্যালেন্সের পরিমান উল্লেখ করে প্রেরক এবং প্রাপক উভয়কেই জানিয়ে দেয়া হবে।

মূল্য এবং অন্যান্য খরচ:

প্রেরক: এসএমএস চার্জ ২ টাকা + ভ্যাট

প্রাপক: সার্ভিস চার্জ ২ টাকা + ভ্যাট

রবি ব্যালেন্স ট্রান্সফারের নিয়ম:
ব্যালেন্স ট্রান্সফারের জন্য একটা নতুন সেবা চালু করা হয়েছে। প্রিপ্রেইড এবং পোস্টপেইড উভয় গ্রাহকই যে কোন সময়ে যে কোন রবি প্রিপেইড একাউন্টে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারেন।

এই সেবা রবির গ্রাহকগণকে যোগাযোগের ক্ষেত্রে চমৎকার সুযোগ করে দেবে। ব্যালেন্স ১ টাকার কম থাকলেও গ্রাহকগণ যোগাযোগ করতে পারবেন। রবির প্রিপেইড গ্রাহকগণ যে কোন রবি নম্বরে ব্যালেন্স চেয়ে অনুরোধ পাঠাতে পারেন। এধরনের সুযোগ বাংলাদেশে এই প্রথম।
কিভাবে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করবেন?
ব্যালেন্স ট্রান্সফারের জন্য এখন নিবন্ধনের প্রয়োজন নেই। ট্রান্সফারের জন্য ম্যাসেজ অপশনে গিয়ে টাকার পরিমাণ (যেমন, ২০) লিখুন এবং ১২১২০১৮xxxxxxxx নম্বরে এসএমএস পাঠিয়ে দিন (এখানে ০১৮xxxxxxxx হচ্ছে ব্যালেন্স গ্রহণকারীর নম্বর)|

প্রথমবার লেনদেনের পর এই সেবার জন্য আপনি স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিবন্ধনভূক্ত হবেন।

সফলভাবে ট্রান্সফারের পর আপনি একটি পিন কোড পাবেন। পুনরায় ট্রান্সফার এর জন্য পিনটি ব্যবহার করুন। পিনটি বন্ধ করতে off লিখে ১২১০ নম্বরে এসএমএস করুন।

আইভিআরের মাধ্যমে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার জন্য ১২১০ ডায়াল করুন।

ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে *১৪০*৬*১# ডায়াল করুন।

কিভাবে ব্যালান্সের জন্য অনুরোধ পাঠাবেন?

অনুরোধ পাঠাতে আপনার একাউন্টে মাত্র ৬০ পয়সা থাকলেই চলবে।

মেসেজ এর অপশনে যত টাকা চান তার পরিমাণ (যেমন, ২৫) লিখে ১২১১ ০১৮yyyyyyyy নম্বরে এসএমএস পাঠান (এখানে ০১৮yyyyyyyy হচ্ছে ব্যালেন্স প্রদানকারীর নম্বর)|

দাতা অনুরোধটি এসএমএস হিসাবে পাবেন

ব্যালান্সের জন্য অনুরোধ করতে *১৪০*৬*২# ডায়াল করুন।

আপনি যখন একটি অনুরোধ পাবেন:

অনুরোধটি গ্রহণ করলে, Y লিখে এসএমএস এর উত্তর দিন;

অনুরোধটি গ্রহণ না করলে, N লিখে এসএমএস করুন;

অনুরোধটি ব্লক করতে চাইলে, B লিখে এসএমএস করুন।

চার্জ (খরচ):

প্রেরকের কাছ থেকে ২.০০ টাকা (+ সম্পূরক শুল্ক + সম্পূরক শুল্কসহ ট্যারিফের উপর ভ্যাট) এবং

গ্রাহকের কাছ থেকে ২.০০ টাকা (+ সম্পূরক শুল্ক + সম্পূরক শুল্কসহ ট্যারিফের উপর ভ্যাট) কেটে নেওয়া হবে (প্রাপ্তির পরিমাণ থেকে)।

নোট

১. ব্যালেন্স ট্রান্সফার সেবা ব্যবহার করার জন্য, আপনার সংযোগটি অবশ্যই নুন্যতম ৩০ দিন চালু থাকতে হবে।

২. একজন প্রিপ্রেইড গ্রাহক একদিনে সর্বোচ্চ ৫০০ টাকা ট্রান্সফার করতে পারবেন, কিন্তু প্রতি ট্রান্জাক্শন-এ সর্বোচ্চ ১০০ টাকা ট্রান্সফার করতে পারবেন।

৩. একজন পোস্টপেইড গ্রাহক একদিনে সর্বোচ্চ ৫০০ টাকা ট্রান্সফার করতে পারবেন, কিন্তু প্রতি ট্রান্জাক্শন-এ সর্বোচ্চ ১০০ টাকা ট্রান্সফার করতে পারবেন।

৪. প্রিপেইড এবং পোস্টপেইড উভয় ধরনের গ্রাহকদের জন্য সর্বনিম্ন ট্রান্সফারের পরিমাণ হবে ৫ টাকা এবং একমাসে সর্বোচ্চ ১,০০০ টাকা ট্রান্সফার করতে পারবেন।

৫. ট্রান্সফারের পরিমাণ অবশ্যই পূর্ণ সংখ্যা হবে। (যেমন, ১৫.৩০ টাকা প্রযোজ্য না)।

৬. সম্পূরক শুল্ক + সম্পূরক শুল্কসহ ট্যারিফের উপর ভ্যাট এবং শর্ত প্রযোজ্য।

৭. (ভয়েস) নির্দেশনা শুনেও আপনি সহজে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারবেন। এজন্য আপনার রবি নম্বর থেকে ১২১০ নম্বরে ডায়াল করে নির্দেশনা অনুযায়ী আপনার কাঙ্খিত রবি নম্বরে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারেন।
সবাইকে ধন্যবাদ।

One response to “সকল সিমের ব্যালেন্স ট্রান্সফারের নিয়ম। একনজরে জেনে নিন। সবার কাজে লাগবে।”

Leave a Reply